Text size A A A
Color C C C C
পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

বেকার যুবক ও যুব মহিলাদের বিভিন্ন ধরনের পেশাভিত্তিক প্রশিক্ষণ দিয়ে দক্ষ করে তোলা হয়। যেমনঃ-        

 

        ক. মটর ড্রাইভিং

         খ. বেসিক কম্পিউটার

         গ. মোবাইল ফোন রিপেয়ার এন্ড সার্ভিসিং

         ঘ. স্ট্রবেরী চাষ

         ঙ. সেলাই

         চ. পাইপ ফিটার

         ছ. বিল্ডিং পেইন্টার

         জ. রেফ্রিজারেশন

         ঝ. পাইপ ফিটিং

         ঞ. গবাদি পশু পালন ও প্রাথমিক পশু চিকিৎসা প্রশিক্ষণ

         ট. মৎস্য চাষ প্রশিক্ষণ

         ঠ. হাঁস মুরগী পালন ও চিকিৎসা প্রশিক্ষণ

         ড. এলুমিনিয়াম ফেব্রিকেশন

         ঢ. যুগপৎ প্রচলিত ও অপ্রচলিত যুদ্ধ সাধারণ আনসার (পরষ) প্রশিক্ষণ

         ণ. সাধারণ আনসার মৌলিক প্রশিক্ষণ

         ত. ভিডিপি মৌলিক প্রশিক্ষণ

২।      আইন শৃংখলা রক্ষায় দেশের অন্যান্য বাহিনীকে সহায়তা করা

৩।      আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কাজ করা।

৪।      সরকারী বেসরকারী বিভিন্ন স্থাপনায় নিরাপত্তার কাজে আনসার অঙ্গীভূত করা হয়

 ৫।      মৌলিক প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত সদস্য-সদস্যাগণের সরকারী ও স্বায়ত্বশাসিত সংস্থায়

         চাকুরীর ক্ষেত্রে ১০% কোটা রয়েছে।

৬।    নির্বাচন ও দুর্গাপূজায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় আনসার ও ভিডিপি সদস্যরা নিয়মিত দায়িত্ব পালন করে থাকে।

৭।    প্রাকৃতিক দুর্যোগে জনসাধারণকে সহায়তা করে থাকে।

৮।    জরম্নরী যুদ্ধাবস্থায় সেনাবাহিনীর নিয়ন্ত্রণে আভিধানিক দায়িত্ব পালন করা।

 

বিভিন্ন ধরণের সেবার জন্য ভিন্ন ভিন্ন ধাপ অতিক্রম করতে হয়। যেমনঃ-

 

১।       সাধারণ আনসার প্রশিক্ষণ

          ধাপ সমূহঃ-

 

1.                

প্রশিক্ষণ গ্রহণের ক্ষেত্রে কি কি যোগ্যতা ও কাগজপত্র প্রয়োজন তা উপজেলা/জেলা কার্যালয়ে এসে অথবা ওয়েবসাইটে ব্রাউজ করে অবগত হওয়া যাবে।

2.               

নির্দিষ্ট তারিখ ও সময়ে বাছাই কার্যক্রম অনুষ্ঠান।

3.               

জেলা কার্যালয় প্রাঙ্গনে ২ সপ্তাহের প্রশিক্ষণ প্রদান।

4.                

আনসার-ভিডিপি একাডেমী, সফিপুর, গাজীপুর-এ ৫ সপ্তাহের প্রশিক্ষণ প্রদান।

5.               

সাফল্যের সাথে প্রশিক্ষণ শেষে সনদ প্রদান।

6.               

প্রশিক্ষণ আবাসিক ও থাকা খাওয়া সরকারী খরচে।

 

২।       কারিগরী প্রশিক্ষণ

          যেমনঃ-

 

          ওয়েল্ডিং ১জি টু ৩জি, পাইপ ফিটিং ও প্লামিং, ইলেকট্রিক্যাল হাউজ ওয়ারিং, রেফ্রিজারেশন এন্ড এসি, মোবাইল ফোন রিপিয়ার এন্ড সার্ভিসিং, অটোমোবাইল ম্যাকানিক্স, অটোমোবাইল ইলেকট্রিশিয়ান, সাটারিং কার্পেন্ট্রি, রড বাইন্ডিং (স্টিল ফিনিক্স), বিল্ডিং পেইন্টিং, রাজমিস্ত্রি (টাইলস, ব্লক ও প্লাষ্টার), ওয়েল্ডিং ১জি টু ৩জি, পাইপ ফিটিং ও প্লামিং, ইলেকট্রিক্যাল হাউজ ওয়ারিং ও রেফ্রিজারেশন এন্ড এসি।

 

1.                

প্রশিক্ষণ গ্রহণের ক্ষেত্রে কি কি যোগ্যতা ও কাগজপত্র প্রয়োজন তা উপজেলা/জেলা কার্যালয়ে এসে অথবা ওয়েবসাইটে ব্রাউজ করে অবগত হওয়া যাবে।

2.               

উপজেলা কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করে নির্বাচিত প্রশিক্ষণার্থীরা নির্দিষ্ট তারিখে জেলা কার্যালয়ে আসবে।

3.               

জেলা কার্যালয় থেকে অগ্রবর্তীকরণ পত্রসহ সংশ্লিষ্ট প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে গমন করবে।

4.                

সাফল্যের সাথে প্রশিক্ষণ শেষে সনদ প্রদান।

5.               

প্রশিক্ষণ আবাসিক ও থাকা খাওয়া সরকারী খরচে।

 

৩।      সাধারণ আনসার অঙ্গীভূতকরণঃ-

         

 

1.                

অঙ্গীভূতির জন্য প্যানেল তৈরীর লক্ষ্যে তারিখ নির্ধারণপূর্বক বিভিন্ন কার্যালয়ের নোটিশ বোর্ডে এবং ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন প্রদান।

2.               

সাধারণ আনসার ও প্রচলিত ও অপ্রচলিত যুদ্ধের যুগপৎ প্রশিক্ষণের সনদ প্রাপ্ত, শারীরিকভাবে যোগ্য স্থায়ী নাগরিকদের মধ্যে থেকে যোগ্য প্রার্থী বাছাই।

3.               

নির্ধারিত কমিটি কর্তৃক উক্ত বাছাইকৃত প্যানেল তালিকা রেঞ্জ কার্যালয়ের মাধ্যমে আনসার ও ভিডিপি সদর দপ্তরে প্রেরণ।

4.                

যাবতীয় সনদপত্র ও অন্যান্য কাগজপত্র যাচাইপূর্বক কেন্দ্রীয় প্যানেল তালিকায় অন্তর্ভূক্তকরণ।

5.               

কেন্দ্রীয় প্যানেল তালিকার ক্রমানুসারে বিভিন্ন জেলার নিরাপত্তা গাডের্র শূন্য পদের বিপরীতে প্রার্থীদের ঠিকানায় অফার লেটার প্রেরণ।

6.               

পুলিশ ভেরিফিকেশন সম্পাদন শেষে অফার লেটার প্রাপ্তদেরকে ৩ (তিন) বছর মেয়াদে অঙ্গীভূকরণ।

 

 

 

৪।       নির্বাচন কালে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালনঃ-

         

 

1.                

স্থানীয় সরকার ও জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোট কেন্দ্র সমূহে আইন শৃঙখলা রক্ষার জন্য নির্বাচন কমিশনের চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে পুলিশ প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করা হয়।

2.               

নির্বাচন অনুষ্ঠানের আগে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত আনসার ও ভিডিপি সদস্য-সদস্যাদের বাছাই করা হয়।

3.               

০৩ বা ০৫ দিন মেয়াদে অঙ্গীভূত আদেশ জারী করে বাছাইকৃত সদস্যদের পলিশের সাথে ভোট কেন্দ্র সমূহে প্রেরণ করা হয়।

4.                

প্রিসাইডিং অফিসারে অধীনে ভোট গ্রহণ ও গণনা শেষে রিটার্নিং অফিসারের নিকট ব্যালট বাক্স বুঝিয়ে দেয়ার পর তাদেরকে দায়িত্ব শেষ হওয়ার ছাড়পত্র প্রদান করা হয়।